পূর্বধলায় ভোট কারচুপির অভিযোগে পুন নির্বাচনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

0
142

স্টাফ রিপোর্টারঃ নেত্রকোণার পূর্বধলা উপজেলায় ২নং হোগলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রার্থী মোঃ সাইদুল ইসলাম এর ভোট কারচুপি করে স্বতন্ত্র প্রার্থী চশমা প্রতীকে সিরাজুল ইসলামকে নির্বাচিত করার অভিযোগে ও পুননির্বাচনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

৫ ডিসেম্বর, উপজেলার ওই ইউনিয়নের ভিকুনিয়া বাজার উক্ত সংবাদ সম্মেলন শেষে মানববন্ধন করে। পরবর্তীতে তা বিক্ষোভে পরিণত হয়।

এসময় বিক্ষোভে যোগদান করেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. মোহাম্মদ আলী, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আইয়ুব আলী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদ, ইউনিয়ন যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাঈনুদ্দিন আহমেদ, যুবলীগ, কৃষক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত সকল এজেন্টগণ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে মোঃ সাইদুল ইসলাম জানান, গত ২৮ নভেম্বর, ২০২১ ইং অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে, মৃত ভোটর, প্রবাসী ভোটার, অনুপস্থিত ভোটার এর ভোট দেওয়া হয়েছে। ৫নং কেন্দ্র- পানিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট গ্রহনের তালিকায় গড়মিল রয়েছে। যেমন- মহিলা সংরক্ষিত সদস্যের ভোট সংখ্যা, চেয়ারম্যান ভোটের সংখ্যা এবং সাধারণ সদস্যের ভোটের সংখ্যা সম্পূর্ণ অমিল।

৫নং কেন্দ্র স্বতন্ত্রী প্রার্থী চশমা প্রতীকের নিজ কেন্দ্র বলে আমার নৌকার প্রার্থীর এজেন্টকে বের করে দেয় ও এই ইউনিয়নের সকল কেন্দ্রের ভোট গণনা করে এবং চশমা প্রার্থীর ভোটের সাথে নৌকার ভোট মিলিয়ে বান্ডেল করে গণনা করে ফেলে। পরদিন সকালে পানিশা কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, তাড়াহুড়া করে চশমা প্রতীকে ভোট কারচুপি করার ফলে এমন ঘটনা ঘটেছে। নৌকা প্রতীকের এজেন্টর এর কাছ থেকে দুপুর ০১ টার আগেই স্বাক্ষর নিয়ে নেয়। নির্বাচনে ভোট গণনার সময় ব্যালট পেপার এজেন্টদের সামনে গণনা করার কথা থাকলেও তা না করে পানিশা সঃ প্রাঃ বিঃ কেন্দ্রে ভোট গণনার আগেই এজেন্টকে কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়।

৩নং কেন্দ্র জামিয়া কাওমিয়া দারুর উলুম সেহলা মাদরাসায় প্রথমে নৌকার ভোট ১১৮৩ গণনা করে ঘোষণা দিলেও রেজাল্ট সিটে ১০৮৩ ভোট দেখানো হয়। ৫নং পানিশা কেন্দ্রে নৌকার ভোট ৭৪৭ এবং চমশা প্রতীকে ১৩০০ গণনা করে ঘোষণা দিলেও রেজাল্ট সিটে নৌকার ৬৪৭ ভোট ও চশমা প্রতীকের ১৩৭৯ ভোট দেখানো হয়।

পরবর্তীতে আমি উপজেলা সভা কক্ষে ফলাফল সংগ্রহ ও ঘোষণা কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে ৫নং কেন্দ্র পানিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৩নং কেন্দ্র জামিয়া কাওমিয়া দারুর উলুম সেহলা মাদরাসা’র দুটি কেন্দ্রের ভোট গণনার জন্য রিটার্নিং অফিসার বরাবর আবেদন করা হয়।

কিন্তু অজ্ঞাত কারণে রির্টানিং অফিসার ভোট গণনা ছাড়াই স্বতন্ত্র প্রার্থী (চশমা) সিরাজুল ইসলাম খোকন কে ৪৯ ভোটের ব্যবধানে হোগলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করে। আমি নির্বাচনে বিজয়ী হওয়া সত্বেও কৌশলে তারা আমাকে বাদ দিয়ে নিজেদের ইচ্ছা মতো ফলাফল লিখে প্রকৃত ফলাফল পাল্টে দিয়েছেন, যা ভোট গণনার ক্ষেত্রে ব্যাপক অনিয়ম, কারচুপির সামিল।

এই অনিয়ম ও কারচুপি আমি ও ইউনিয়নের সম্মানিত ভোটরগণ কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না। সুষ্ট নির্বাচনী ব্যবস্থা কার্যক্রর ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা সমুন্নত রাখার স্বার্থে পুননির্বাচনের দাবিতে প্রধান নির্বাচন কমিশন বরাবর লিখিত আবেদন করেন এবং গেজেট প্রকাশ স্থগিত রাখার জোর দাবি জানান।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জানান, নির্বাচন সুষ্টু হয়েছে। নৌকা প্রার্থীর যদি কোন অভিযোগ থাকে তাহলে গেজেট প্রকাশ হওয়ার পর নির্বাচনী ট্রাইবুনালে মামলা করার সুযোগ রয়েছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here