ফসলের মাঠে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, জয় ও বঙ্গমাতার প্রতিচ্ছবি

0
97
ফসলের মাঠে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, জয় ও বঙ্গমাতার প্রতিচ্ছবি

ফসলের মাঠে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী, জয় ও বঙ্গমাতার প্রতিচ্ছবি। নিজের ফসলি জমিতে বঙ্গবন্ধুর পরিবারের প্রতি অগাধ ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ হিসেবে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গমাতা, প্রধানমন্ত্রী ও সজীব ওয়াজেদ জয়সহ অনেক কিছুর প্রতিচ্ছবি এঁকেছেন আব্দুল কাদির নামে এক কৃষক।

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারবাড়ি ইউনিয়নের পাড়া খালবলা গ্রামে দেখা মিলে এমন মনোমুগ্ধকর দৃশ্য।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার আঠারবাড়ি ইউনিয়নের পাড়া খালবালা এলাকার কৃষক আব্দুল কাদির এই কাজটি করেছেন। ‘পাড়া খালবলা বন্ধুমহল ডিজিটাল ক্লাব’ নামের একটি স্থানীয় সংগঠনের সহযোগিতায় নিজের ৩৩ শতক জমিতে সরিষা গাছ ও লাল শাকের মাধ্যমে তিনি ফুটিয়ে তুলেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সজীব ওয়াজেদ জয়, পদ্মাসেতু, মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধসহ আরেক অনেক কিছুর প্রতিচ্ছবি।

জানা যায়, গত বছরও একই জমিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি এঁকে সারা দেশে ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছেন কৃষক কাদির। এরই ধারাবাহিকতায় বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ও বঙ্গবন্ধুর পরিবারের প্রতি অগাধ ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ হিসেবে ফের এমন অনন্য শিল্পের উদ্যোগ নিয়েছেন ওই কৃষক।

সরিষাগাছ এবং লালশাক মিলে মনোমুগ্ধকর অবয়ব দেখতে প্রতিদিনই ফসলের মাঠে ভিড় করছে দূর-দূরান্তের লোকজন। গাছ যত বড় হচ্ছে, ছবিগুলোর নান্দনিকতা-সৌন্দর্য আরও বাড়ছে।

এ বিষয়ে কৃষক আব্দুল কাদির বলেন, আমি যা করেছি তা বঙ্গবন্ধুকে এবং বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে ভালোবেসেই করেছি। আমি একজন কৃষক মানুষ, তাই আমি আমার ভালোবাসাটা ফসলের মাঠে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছি। আর আমার এই শিল্পটা দেখার জন্য যখন দূর-দূরান্ত থেকে থেকে লোকজন আসে তখন আমার খুবই ভালো লাগে।

এ প্রসঙ্গে পাড়া খালবলা বন্ধুমহল ডিজিটাল ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল ইসলাম সোহেল বলেন, দেশ এবং বঙ্গবন্ধুর পরিবারের প্রতি কৃষক আব্দুল কাদিরের ভালোবাসা দেখে আমরা এই কাজে সহযোগিতা করেছি। এমন একটি কাজে তাঁকে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা গর্বিত।

আঠারবাড়ি ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি এ এইচ হালিম বলেন, কৃষক আব্দুল কাদিরের জমিতে বঙ্গবন্ধুর পরিবারের প্রতি তাঁর অগাধ ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশে আমরা আঠারবাড়িবাসী গর্বিত।

ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসা. হাফিজা জেসমিন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর পরিবারের প্রতি ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ হিসেবে কৃষকের এমন একটি উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। আমি এই বিষয়টি গতকালই অবগত হয়েছি। অচিরেই তা পরিদর্শনে যাব। উপজেলা প্রশাসন ওই কৃষকের পাশে থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here