১ ঘন্টায় জন্মনিবন্ধন সংশোধন, ৪ দিনেই তিন শতাধিক উপকার ভোগী

0
66
১ ঘন্টায় জন্মনিবন্ধন সংশোধন, ৪ দিনেই তিন শতাধিক উপকার ভোগী

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ ১ ঘন্টায় জন্মনিবন্ধন সংশোধন, ৪ দিনেই তিন শতাধিক উপকার ভোগী। জন্মনিবন্ধন সংশোধন অনেক বিড়ম্বনা ও সময়সাপেক্ষ বিষয় হয়ে উঠেছিল সাধারণ জনগণের জন্য।

মুক্তির উৎসব ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার এক উদ্যোগ বদলে দিয়েছে সেই প্রেক্ষাপট। এখন মাত্র ১ ঘন্টায় জন্মনিবন্ধন করতে পারছে সেবাগ্রহীতারা।

মেলা শুরু হওয়ার ৪ দিনেই তিন শতাধিক উপকার ভোগী তাদের জন্মনিবন্ধন সংশোধন করতে পেরেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার(১৭ মার্চ) শুরু হওয়া ৭ দিনব্যাপী মুক্তির উউসব ও সুবর্ণজয়ন্তী মেলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের স্টলে এ সুযোগ পাচ্ছে সেবাগ্রহীতারা।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য সংশোধিত বিষয়ের উপর কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে তা লিপিবদ্ধ করে স্টলের সামনে টানিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং মাইকিং করে জনগণকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এর আগে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনে সেবাগ্রহীতাদের দীর্ঘ ভোগান্তি পোহাতে হতো। জন্ম নিবন্ধন করতে দিনের পর দিন এমনকি মাসও লেগে যেতো বলে ভুক্তভোগীরা জানায়।

শফিকুল ইসলাম নামে একজন বলেন, এভাবে জন্ম নিবন্ধন সহজ হওয়ায় এখন আমরা অল্প সময়েই নিবন্ধন করতে পারছি। এই বিশেষ উদ্যোগের জন্য ধন্যবাদ জানায় উপজেলা প্রশাসনকে।

উপজেলার আইসিটি টেকনিশিয়ান মোজাম্মেল হক বলেন, এটি আমাদের ইউএনও সারের একটি ইনোভেশন। সেবার মানটা আরও ভালো দেওয়া সম্ভব যদি সারাক্ষণ সার্ভার সচল থাকে। এখন পর্যন্ত ৩ শতাধিক লোকের জন্মনিবন্ধন সংশোধন করা সম্ভব হয়েছে।

জন্মনিবন্ধন সংশোধন করতে আসা সমিক হাসান জানান, শুনেছিলাম জন্ম নিবন্ধন সংশোধনে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। আবেদন ফরম জমা দিলে বেশ কয়েকদিন পর শুনানির তারিখ পড়ে। সে তারিখে উপস্থিত হয়ে তারপর সংশোধন করতে হয়। কিন্তু মেলা উপলক্ষে এই স্টলে কয়েক মিনিটেই আমি আমার জন্মনিবন্ধন সংশোধন করতে পেরেছি। ধন্যবাদ উপজেলা প্রশাসনকে।

এ বিষয়ে ইউএনও মো. আক্তারুজ্জামান বলেন, সংশোধনের ধরণের উপর ভিত্তি করে কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে তা সেবাগ্রহীতাদের আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এতে করে অল্প সময়ে সহজেই জন্মনিবন্ধন সংশোধন করে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে। মুক্তির উৎসব ও সুবর্নজয়ন্তী মেলা উপলক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক জনগনের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপনের জন্য এই মহতি উদ্যোগ বাস্তবায়নের চেষ্টা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here