পুলিশ সুপার মাছুম আহম্মদ এর জীবন বৃত্তান্ত

0
18
পুলিশ সুপার মাছুম আহম্মদ

পুলিশ সুপার মাছুম আহম্মদ এর জীবন বৃত্তান্ত। মাসুম আহম্মদ ভূঞা, পিপিএম সম্প্রতি বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী জেলা ময়মনসিংহ জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে পদাধিত হয়েছেন। মার্চ ২০২১ হতে ২৩ আগস্ট ২০২২ পর্যন্ত তিনি জয়পুরহাট জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি ২৫ তম বিসিএস পুলিশের একজন সদস্য।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানা প্রমাণী গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ হতে মাতক সম্মান) ও মাস্টার্স এ মেধা তালিকায় ২য় স্হান অর্জন করেন।

চাকুরি জীবনে তিনি অনেক গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত থেকে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০০৯-১০ সালে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশান পুলিশ এর প্রধান ( ওসি ইমিগ্রেশন) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ব্রিটিশ সরকারের অত্যন্ত সম্মানজনক ‘ Chevening Scholarship ২০১০ এর আওতায় যুক্তরাজ্যের University of Work হতে Applied Human Rights বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেন।

২০১২-১৪ সালে তিনি এএসপি(সদর সার্কেল) হিসেবে নড়াইল জেলায় কর্মরত ছিলেন। ২০১৪-২০১৫ সালে তিনি জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন MINUSTAN এর অধীন হাইতি তে Individual Police Officer (imo) হিসেবে হাইতি জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠান ও হাইতি ন্যাশনাল পুলিশ এর capacity building কার্যক্রমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

তিনি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স এর ইউএন এ্যাফেয়ার্স এ দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ২০১৭ সাল হতে ২০২০ পর্যন্ত বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী জেলা ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ঢাকা জেলা হিসেবে দায়িত্ব পালনকালীন তিনি আমিনবাজার নবীনগর, বাইপাইল, আশুলিয়া, নবীনগর বারবাড়িয়া এলাকায় অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন সিসিটিভি প্রকল্প বাস্তবায়ন ও সাভার থানায় অত্যাধুনিক সেন্ট্রাল কমান্ড ও মনিটরিং সেন্টার এর প্রকল্প পরিচালক হিসেবে। প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ২০১৮ সালের নভেম্বরে পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতিপ্রাপ্ত হন।

তিনি ২০২০-২০২১ ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি (ক্রাইম) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি পুলিশ সুপার জয়পুরহাট হিসেবে কর্মরত থাকাকালীন মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিকশিতকরণের লক্ষ্যে জয়পুরহাট পুলিশ লাইন্স এ মুক্তিযুদ্ধের কার গৌরবময় স্বাধীনতা প্রতিষ্ঠা এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের উপস্থিতিতে ১০০ জন মাদক ব্যবসায়ীকে ও অবৈদ কিডনি পাচার চক্রের প্রতারণার শিকার ১৫ জন অসহায়, দুস্থ ও গরিব রোগীদের আর্থিক সহায়তা ও পুনর্বাসন কার্যক্রম গ্রহণ করেন।

এছাড়া তিনি মাদকদ্রব্য উদ্ধার, চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার ও অবৈধভাবে কিডনি পাচার চক্রের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার অভিযান পরিচালনায় ব‍্যাপক সফলতা অর্জন করেন। অসাধারণ পেশাদারিত্ব ও প্রশংসনীয় কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৬ সালে IGP Exemplary Good Services Badge’ ও ২০১৮ সালে President, Police Medal (PPM) সেবা লাভ করেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রামাণ্য ও প্রশংসনীয় ‘গৌরবময় স্বাধীনতা গ্রহের সম্পাদক তিনি।

এছাড়া ২৫তম বিসিএস (পুলিশ) এর ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রকাশিত “স্মরণ ৩য় সংখ্যা ২৫তম বিসিএস পুলিশ এর পুলিশ একাডেমি, সারদা, রাজশাহীতে মৌলিক প্রশিক্ষণ সমাপনি কুচকাওয়াজ উপলক্ষে প্রকাশিত ‘দীপ্ত স্মরণিকা সম্পাদনা করেন। তার স্ত্রী ডা. রেবেকা শারমিন পেশায় একজন চিকিৎসক। তিনি এক পুত্র সন্তান ও এক কন্যা সন্তানের জনক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here