বিশ্ববিদ্যালয় জীবন কেমন হওয়া উচিত

0
147
বিশ্ববিদ্যালয় জীবন কেমন হওয়া উচিত

বিশ্ববিদ্যালয় জীবন কেমন হওয়া উচিত। বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়ার পর সবার নতুন একটা অধ্যায়ের সূচনা হয়। আমাদের অনেকের ধারণা যে বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া মানেই সব পেয়ে গেছি। আসলেই কি তাই!

আসলে এমনটা না। চান্স পাওয়া মানেই সব পেয়ে যাওয়া না। বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া মানে আমি বলব নতুন স্বপ্ন দেখা শুরু করা। এখান থেকে অন্যভাবে স্বপ্ন দেখা শুরু করতে হবে। এতদিন স্বপ্ন দেখছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়ার জন্য, এখন স্বপ্ন দেখতে হবে ক্যারিয়ার টা সুন্দর করার জন্য, জীবনটাকে গড়ার জন্য। এই বিশ্ববিদ্যালয়কে বলা যায় স্বপ্ন দেখার একটা সহায়ক প্ল্যাটফর্ম। যেটা আপনাকে স্বপ্ন পূরণ করতে সাহায্য করবে। এর থেকে বেশি কিছু না।

অনেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়ার পর এসব আর চিন্তা করি না। সবাই নতুন বন্ধু-বান্ধব নিয়ে ঘোরা-ফেরা,আড্ডা অনেক কিছু করে সময় কাটিয়ে দিই। এভাবে দেখতে দেখতে একটা বছর পার হয়ে যায়। যখন পরীক্ষা আসে তখন অনেকে বুঝতে পারি যে একটু পড়াশুনা করা উচিত ছিল। এর মানে এই না যে ঘোরা-ফেরা করতে হবে না। তবে সেটা মাত্রাতিরিক্ত না।

বিশ্ববিদ্যালয় অবশ্যই উপভোগ করার একটা জায়গাও বটে; তবে সেটা এমন যেন না হয় যে তার জন্য আপনার অনুশোচনা করতে হবে। যার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা সেটা ঠিক রাখতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় এমন একটা জায়গা যেখান থেকে আপনি নিজেকে নিজের মত করে গড়ে নিতে পারবেন।

এখন নিজেকে কেমনভাবে গড়ে নেবেন সেটা অবশ্যই আপনার নিজের উপর নির্ভর করবে। আপনার যদি কোন স্বপ্ন থাকে যেটা বাস্তবায়ন করতে হবে মনে করেন, তাহলে সেটার জন্য যা করা দরকার তাই করেন।কি করতে হবে আশা করি সেটা একটু হলেও নিজে বুঝতে পারেন।

এখন বিষয় হচ্ছে সেটা এই বুঝতে পারেন এর ভেতর শুধু সীমাবদ্ধ রাখলে হবে না, বুঝতে পারাকে বাস্তবায়ন করতে হবে। প্রথমে খেয়াল রাখতে হবে আপনার সিজিপিএ যেন একদম খারাপ না হয়ে যায়। এটার দিকে নজর দিতে হবে। অনেকে বলে সিজিপিএ ব্যাপার না। এরকম অনেক সফল ব্যক্তিও আছে যাদের সিজিপিএ কম। তার মানে এই না যে সিজিপিএ কম থাকলেই সফল হওয়া যাবে। আমার কথা হচ্ছে সিজিপিএ টাও ভালো থাক তাহলে তো কোন সমস্যা নাই।

বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার পাশাপাশি এমন প্রোডাক্টিভ কিছু করেন যাতে চার বছর পর আপনার বসে থাকতে না হয়। যে কোন বিষয়ের চর্চা করুন। শুধুই যে সিলেবাসভুক্ত থাকতে হবে এমন না। আপনি ভবিষ্যতে কি করতে চান বা কি হবেন সেটা নিয়ে আগে থেকেই কম বেশি যতটা পারেন চর্চা করেন বা জ্ঞান রাখুন। এটা অনেক কাজে দেবে।

নিজেকে এমনভাবেই তৈরি করে নিন যাতে আপনার স্বপ্নের বাস্তবায়ন করতে খুব দেরি না হয়। এমন কিছু করেন যেন বিশ্ববিদ্যালয় আপনাকে নিয়ে গর্ব করে।

লেখক: ওবাইদুর রহমান ফারাবী
ইংরেজি বিভাগ
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here